Space For Rent

Space For Rent
মঙ্গলবার, ১৯ আগস্ট, ২০১৪
প্রচ্ছদ » সবুজ পৃথিবী
  দেখেছেন :   আপলোড তারিখ : 2014-08-19
পান্থকুঞ্জ পার্কের পরিবেশ বিপর্যয়
বর্তমান ডেস্ক : পান্থকুঞ্জ পার্কের বৈশিষ্ট্য ও তার ব্যবহারের নিয়ম-নীতির সঙ্গে ঢাকা সিটি করপোরেশনের আচরণ অবাস্তব বলে মন্তব্য করেছে পরিবেশবাদী বিভিন্ন সংগঠন।

এ পার্কে ময়লার ডিপো ও ময়লা স্থানান্তর কেন্দ্র স্থাপন প্রক্রিয়া বন্ধ করা ও আশপাশে ময়লার স্তূপ অবিলম্বে অপসারণ করার দাবিতে শনিবার কারওয়ান বাজারে পান্থকুঞ্জ পার্কের সামনে আয়োজিত এক মানববন্ধনে বক্তারা এ মন্তব্য করেন। বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা), গ্রিন ভয়েস, ডব্লিউবিবি ট্রাস্ট, নিরাপদ ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন, সেবা ও কাঁঠালবাগানসহ স্থানীয় এলাকাবাসীর যৌথ উদ্যোগে মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়।

বক্তারা বলেন ‘রাজধানীর কারওয়ান বাজারে পান্থকুঞ্জ পার্কটি নানাবিধ যাঁতাকলে পিষ্ট হয়ে চলেছে। এর প্রধান কারণ হচ্ছে পার্কটিতে মহানগরীর মানুষের প্রবেশাধিকার, বেড়ানো, বসা, শিশুদের খেলাধুলা অত্যন্ত সীমাবদ্ধ। পার্কের পশ্চিম পাশে অর্থাত্ প্রাক্তন সোনারগাঁ রোড বা বর্তমান বীরউত্তম সি আর দত্ত রোডের এক অংশে গাড়ি চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

রাস্তা ও পার্ক সংলগ্ন ফুটপাথের ওপর বেআইনিভাবে নানা প্রকার ব্যবসা কেন্দ্র স্থাপন, নানাবিধ মালামাল রাখা, কোনো কোনো স্থানে ভাসমান মানুষের অস্থায়ী বস্তি বসানো হয়েছে। বক্তারা আরও বলেন, একপাশের পার্ক সংলগ্ন রাস্তা ও ফুটপাথ জুড়ে বসানো হয়েছে সিটি করপোরেশনের বৃহত্ আকারের একাধিক ডাস্টবিন।

এতে জমাকৃত ময়লার একটা প্রধান অংশ এখানে সবসময় পড়ে থাকে, ফলে রাস্তা, ফুটপাথ ও সংলগ্ন স্থানটি সার্বক্ষণিক নোংরা ও অসহনীয় দুর্গন্ধে ভরে থাকছে। সর্বশেষ মড়ার উপর খাঁড়ার ঘা হিসেবে এসে হাজির হয়েছে ঢাকা সিটি করপোরেশনের ‘আরবান পাবলিক অ্যান্ড এনভায়রনমেন্ট হেলথ সেক্টর ডেভেলপমেন্ট’ নামক প্রকল্প।

এর অধীনে পান্থকুঞ্জ পার্কের দক্ষিণ-পশ্চিম পাশের অংশে পার্কের অভ্যন্তরে আনুষ্ঠানিকভাবে স্থায়ী ময়লা ফেলার ডিপো ও স্থানান্তর কেন্দ্র স্থাপনের কাজ হাতে নেয়া হয়েছে।

এ সময় সমাবেশ থেকে তারা কিছু দাবি তুলে ধরেন। যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে, পান্থকুঞ্জ পার্কের মধ্যে পরিকল্পিত ও স্থায়ী ময়লার ডিপো ও স্থানান্তর কেন্দ্র বসানোর পরিস্থাপন অবিলম্বে বাতিল, পার্শ্ববর্তী রাস্তার ওপর বসানো সব ডাস্টবিন অবিলম্বে অপসারণ, পার্কের পশ্চিম পাশের রাস্তা ও ফুটপাথটিকে দখল ও স্থাপনা মুক্ত করা, পান্থকুঞ্জ পার্কটির পুরো অংশে নগরবাসীর প্রবেশ, বিনোদন, বেড়ানো, বসা, শিশুদের খেলাধুলার লক্ষ্যে সম্পূর্ণভাবে খুলে দেয়া।

পান্থকুঞ্জ পার্ক প্রাতভ্রমণ কমিটির সভাপতি ও স্থানীয় বাসিন্দা আলমগীর হোসেনের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন বাপার সাধারণ সম্পাদক ডা. মো. আব্দুল মতিন, কাঁঠালবাগানের বাসিন্দা মো. কামাল হোসেন, মো. নাসিম, বাপার যুগ্ম সম্পাদক মিহির বিশ্বাস, নির্বাহী সদস্য ড. মাহবুব হোসেন ও অধ্যাপক একেএম মোজাম্মেল হক, ডব্লিউবিবি ট্রাস্টের ন্যাশনাল অ্যাডভোকেসি অফিসার মারুফ রহমান, গ্রিন ভয়েসের সহসমন্বয়ক হুমায়ন কবির সুমন, সেবার পরিচালক ডা. মো. নুরুদ্দিন, নিরাপদ ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ইবনুল সাঈদ রানা, স্থানীয় এলাকাবাসীর পক্ষে মো. নাসিম, মিলন ডলি, নারগিস মাজহার প্রমুখ।

(একে/আগস্ট ১৯, ২০১৪)