Space For Rent

Space For Rent
শনিবার, ৩০ আগস্ট, ২০১৪
প্রচ্ছদ » প্রবাসের খবর
  দেখেছেন :   আপলোড তারিখ : 2014-08-30
স্বামীর বেকারত্ব থেকেই অশান্তি
মুনজের আহমদ চৌধুরী, লন্ডন : স্কুল শিক্ষিকা রুকশানার মৃত্যুকে কেন্দ্র করে ব্রিটেনে বাঙালি কমিউনিটিতে পারিবারিক নির্যাতনের বিষয়টি আবারও সামনে উঠে এসেছে। দুই সন্তানের জননী রুকশানা সম্প্রতি স্বামীর নির্যাতনে হাসপাতালে মারা যান। স্টকপোর্টের নর্থ রেডিশ এলাকার বাসিন্দা রুকশানা পেশায় প্রাইমারি স্কুল শিক্ষিকা। স্বামীর নির্যাতনের ভয়াবহতায় ছয়দিন হাসপাতালের বেডে মৃত্যুর সঙ্গে লড়েন তিনি।
এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় শোকে মুহ্যমান স্বজনরা জানান, প্রতিটি মৃত্যুই অনাকাঙ্ক্ষিত বেদনার। তারপরও সেই মৃত্যু যদি হয় অবুঝ দুই শিশুসন্তানকে রেখে এক যুগ সংসার করা স্বামীর হাতে, তবে বলার কিছু থাকে না। গতকাল রুকশানার স্বজনদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, আবুল কাশেম মিয়ার সঙ্গে রুকশানার বিয়ে হয় প্রায় এক যুগ আগে। আবুল কাশেম শুরু থেকেই বেকার থাকায় রুকশানার পরিবার শুরুতে এই বিয়েতে রাজি ছিলেন না। স্কুল শিক্ষিকা রুকশানার আয়েই চলত তাদের সংসার। কিন্তু গত কয়েক মাস আগে থেকেই পারিবারিক দ্বন্দ্বের জের ধরে রুকশানাকে মারপিট করা শুরু করেন আবুল কাশেম। এমন অবস্থায় রুকশানা আলাদা হয়ে যাওয়ার কথা ভাবছিলেন। রুকশানার স্বজনরা দাবি করেন, নর্থ রেডিশের বাড়িটি রুকশানার শিক্ষকতা পেশার আয়ে তার নিজের নামে কেনা। আর সন্তানরা অপ্রাপ্ত বয়স্ক হয়ে যাওয়ায় স্ত্রী আলাদা হয়ে গেলে সন্তানদের দেখভালের অধিকার মা-ই যে পাবেন এমন ভাবনা থেকে রুকশানার ওপর ক্ষিপ্ত ছিলেন আবুল কাশেম। আর এটি হত্যার কারণ হতে পারে বলে দাবি করছেন রুকশানার স্বজনরা।
এদিকে ডেইলি মেইলের খবরে বলা হয়, ৩৫ বছর বয়সী রুকশানার শরীরে ও গলায় আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। ৫ ভাই বোনের মধ্যে চতুর্থ রুকশানার জন্ম ও বেড়ে ওঠা লন্ডনের রিডিং এলাকায়। বাবা বেঁচে না থাকলেও মাসহ পরিবারের সব সদস্যই লন্ডনে বসবাস করছেন। এদিকে রুকশানার দুই সন্তান এখন তাদের খালার কাছে রয়েছে। রুকশানার জানাজার সময় এখনও নির্ধারিত না হলেও ইস্ট লন্ডন মসজিদে তার জানাজা অনুষ্ঠিত হবে বলে জানান নিহতের পরিবারের সদস্যরা।
(আগস্ট ৩০, ২০১৪)