Space For Rent

Space For Rent
মঙ্গলবার, ০২ সেপ্টেম্বর, ২০১৪
প্রচ্ছদ » সবুজ পৃথিবী
  দেখেছেন :   আপলোড তারিখ : 2014-09-02
গলছে বরফ মরুময় হয়ে উঠছে পরিবেশ
বর্তমান ডেস্ক : তিব্বতে হিমবাহের তাপমাত্রা অস্বাভাবিক হারে বেড়েই চলছে, এর মূল কারণ হলো জলবায়ু পরিবর্তন। এতে বাংলাদেশ-ভারতসহ এশিয়ার অনেক দেশেই জলের সঙ্কট দেখা দিতে পারে ব্যাপক হারে। বড় নদ-নদীতে জলবিদ্যুত্ প্রকল্প ও বাঁধ নির্মাণ বিষয়টিকে আরও জটিল করে তুলছে।

বৈশ্বিক উষ্ণায়ন যে বাড়ছে, তা জানার জন্য আর বৈজ্ঞানিক গবেষণার প্রয়োজন বোধ হচ্ছে না। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের মানুষ প্রতিবছর তা ধীরে ধীরে অনুভব করছেন। তবে এর সামগ্রিক প্রবণতা ও প্রভাব সম্পর্কে এখনো অনেক কিছু জানা বাকি রয়েছে।

চীনের এক গবেষণা প্রতিষ্ঠান এবার এমনই এক চাঞ্চল্যকর প্রবণতার খবর প্রকাশ করেছে? চীনা বিজ্ঞান অ্যাকাডেমির ‘ইনস্টটিটিউট অব টিবেটান প্ল্যাটো রিসাচ’-এর সূত্র অনুযায়ী, তিব্বতের মালভূমির হিমবাহের তাপমাত্রা গত ৫০ বছরে আশঙ্কাজনক মাত্রায় বেড়েছে  যা গোটা বিশ্বের গড় হারের প্রায় দ্বিগুণ। গত দুই হাজার বছরে এমন অঘটন আর দেখা যায়নি।

এ প্রবণতা চালু থাকলে বরফ আরও গলে যাবে, সেই জায়গায় মরু অঞ্চল সৃষ্টি হবে। তিব্বতের হিমবাহ ধীরে ধীরে উধাও হয়ে গেলে ভারত ও বাংলাদেশসহ এশিয়ার বিস্তীর্ণ অঞ্চলে জলের সরবরাহ মারাত্মক হারে কমে যাবে। ভারত ও বাংলাদেশে ব্রহ্মপুত্র বা যমুনা, চীনের ইয়েলো ও ইয়াংসি নদী, দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার মেকং ও সালউইনের মতো গুরুত্বপূর্ণ নদ-নদীর জলের সরবরাহ অনিশ্চিত হয়ে পড়বে?

চীনা গবেষকদের খুঁটিনাটি কিছু হিসাব পরিস্থিতির ভয়াবহতা আরও স্পষ্ট করে দিচ্ছে। মে মাসের হিসাব অনুযায়ী গত ৩০ বছরে তিব্বতের হিমবাহ প্রায় ১৫ শতাংশ বরফ সঙ্কুচিত হয়েছে। অর্থাত্ প্রায় ৮,০০০ বর্গ কিলোমিটার এলাকা থেকে হিমবাহ উধাও হয়ে গেছে।

এখন প্রশ্ন হলো, এমন প্রবণতা বন্ধ করা সম্ভব না হলেও এর গতি কি কমানো সম্ভব? কারণ এমন অস্বাভাবিক মাত্রায় জলবায়ু পরিবর্তনের জন্য মানুষের কার্যকলাপই দায়ী। বিজ্ঞানীরা সংশ্লিষ্ট সরকারগুলির উদ্দেশ্যে ঠিক সেই আবেদনই জানিয়েছেন। কিন্তু এর বাস্তবে চীন ও ভারতের মতো দেশ উল্টো পথে হাঁটছে? চীনের সরকার তিব্বত অঞ্চলেই একের পর এক জলবায়ু বিদ্যুত্ প্রকল্পের কাজ চালিয়ে যাচ্ছে।

আগামী ২০২০ সালে আরও বড় আকারের বাঁধ নির্মাণের কাজ শুরু হওয়ার কথা। জীবাশ্মভিত্তিক জ্বালানির ওপর নির্ভরতা কমাতে চীন গত কয়েক দশক ধরে জলবিদ্যুতের ওপর বিশেষ জোর দিয়ে আসছে। ভারতও ব্রহ্মপুত্র নদে বেশ কয়েকটি জলবিদ্যুত্ কেন্দ্র নির্মাণের পরিকল্পনা করছে। এই মর্মে প্রায় ১০০টি প্রস্তাব পরীক্ষা করা হচ্ছে।

(একে/সেপ্টেম্বর ০২, ২০১৪)