Space For Rent

Space For Rent
মঙ্গলবার, ০২ সেপ্টেম্বর, ২০১৪
প্রচ্ছদ » অন্যদেশ
  দেখেছেন :   আপলোড তারিখ : 2014-09-02
অভ্যুত্থানের বিরুদ্ধে পাক সংসদ ঐক্যবদ্ধ
বর্তমান ডেস্ক : পাকিস্তানের চলমান রাজনৈতিক সঙ্কট নিরসনে আক্রমণ ও অভ্যুত্থানের বিরুদ্ধে সমগ্র সংসদ ঐক্যবদ্ধ আছে বলে জানিয়েছেন দেশটির কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী চৌধুরী নিসার আলী খান। সরকারবিরোধী বিক্ষোভের মধ্যেই মঙ্গলবার সংসদে যৌথ অধিবেশনে বক্তৃতাদানকালে দেশটির রাজনৈতিক পরিস্থিতির ইঙ্গিত দিয়ে তিনি এ কথা বলেন। এদিকে পিটিআই প্রধান ইমরান খান বলেছেন, দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত তিনি অবস্থান বদলাবেন না। এরূপ রাজনৈতিক টালমাটাল অবস্থায় প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ তার বিদেশ সফর বাতিল করেছেন। খবর ডন, বিবিসি ও আলজাজিরার।
মঙ্গলবার সংসদে যৌথ অধিবেশনে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী চৌধুরী নিসার আলী খান বলেন, দেশ এখন কঠিন সময় পার করছে। এ সংসদ ১৮ কোটি মানুষের প্রতিনিধি। তাই মাত্র কয়েক হাজার মানুষের জন্য দেশে অরাজকতা সৃষ্টি করতে দেয়া যায় না। কোনো ধরনের আক্রমণ ও অভ্যুত্থানের বিরুদ্ধে সংসদের সবাই আজ ঐক্যবদ্ধ। তিনি আরও বলেন, কারও সন্দেহ থাকা উচিত নয় যে দেশ নির্বাচিত প্রতিনিধিদের দ্বারাই পরিচালিত হচ্ছে।
নিসার আলী বলেন, পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফের (পিটিআই) নেতা ইমরান খান মাত্র আট দিন আগে আমাদের প্রতি তার সমর্থন জানিয়েছিল। কিন্তু হঠাত্ এমন কি হলো যে এখনই তাকে ইউ টার্ন নিতে হবে। এটা কোনো বিক্ষোভ কিংবা অনশন নয়, এটা পাকিস্তান ও রাষ্ট্রীয় সংস্থার বিরুদ্ধে অভ্যুত্থান।
নওয়াজের পাশে বিরোধী দল
চলমান রাজনৈতিক অচলাবস্থা ও অনিশ্চয়তার মাঝে সরকারের প্রতি সমর্থন জানিয়েছে বেশিরভাগ বিরোধী দল।  পাকিস্তানের জাতীয় সংসদের জরুরি অধিবেশনে দলগুলো মঙ্গলবার এ সমর্থন জানিয়েছে। সরকারের প্রতি সমর্থন দিয়ে পাকিস্তান পিপলস পার্টি বা পিপিপি নেতা আইতাজ আহসান বলেছেন, ইমরান খান ও তাহিরুল কাদরি নারী এবং শিশুদের মানবঢাল হিসেবে ব্যবহার করে ‘কথিত বিপ্লব’ করতে চাইছেন। কিন্তু তাদের এ প্রচেষ্টা সফল হবে না। তিনি প্রশ্ন তুলে বলেন, ‘এটা কী ধরনের বিপ্লব?’ তিনি প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ করে বলেন, ‘বিরোধী দল আপনার সঙ্গে আছে।’
পাখতুনখোয়া মিল্লি আওয়ামী পার্টির নেতা মাহমুদ খান আচাকজাই বলেন, ইমরান ও তাহিরুল কাদরি আন্দোলনের নামে যা করছেন তা নিতান্তই সন্ত্রাসবাদ। অধিবেশনে পিটিআই দলের বহিষ্কৃত সভাপতি জাভেদ হাশমিও যোগ দেন। সংসদ অধিবেশনে দেয়া বক্তৃতায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী চৌধুরী নিসার আলী খান বলেছেন, আন্দোলনের নামে ইমরান খান ও তাহিরুল কাদরি যা করছেন তা রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ ছাড়া আর কিছু নয়।  তিনি বলেন, কয়েক হাজার মানুষের কাছে দেশ জিম্মি হয়ে থাকতে পারে না। এর আগে, সোমবার পাকিস্তান জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম দলের একাংশের নেতা মাওলানা ফজলুর রহমান বলেছেন, ইমরান ও কাদরির বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের মামলা করা উচিত। এছাড়া, জামায়াতে ইসলামী বলেছে, সংলাপের মাধ্যমে চলমান সমস্যার সমাধান করতে হবে। তবে এমকিউএম দলের সর্বশেষ অবস্থান সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যায়নি।
মঙ্গলবার পাকিস্তান সংসদের উচ্চকক্ষ ও নিম্নকক্ষের সমন্বয়ে এ যৌথ অধিবেশন শুরু হয়। সংসদের স্পিকার এনএ আয়াজ সাদিক এবং সিনেট চেয়ারম্যান নায়ার বুখারির সভাপতিত্বে এ অধিবেশন শুরু হয়েছে।
প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের পরামর্শে দেশটির রাষ্ট্রপতি মামনুন হোসেন সংসদের এ জরুরি যৌথ অধিবেশন শুরুর নির্দেশ দেন। অধিবেশনে নওয়াজ শরিফ উপস্থিত আছেন। সংসদ অধিবেশন সপ্তাহ খানেক চলবে বলে জানা গেছে।
সেনা হস্তক্ষেপ চান না ইমরান
এদিকে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করে পিটিআই প্রধান ইমরান খান বলেছেন, রাজনৈতিক উদ্দেশ্য হাসিলের জন্য সেনাবাহিনীর হস্তক্ষেপের প্রয়োজন নেই। এমনকি এজন্য তিনি কখনও সেনাবাহিনীর সাহায্যও কামনা করবেন না।
গত সোমবার রাতে ইসলামাবাদে আন্দোলনকারীদের অবস্থানস্থলে কর্মী-সমর্থকদের উদ্দেশে ইমরান বলেন, এ আন্দোলন থামবে এ সরকার পদত্যাগ করলেই, এর আগে নয়।
সেনাবাহিনীর সহায়তায় ক্ষামতায় আসতে চান ইমরান— সম্প্রতি তার দলের প্রেসিডেন্ট জাভেদ হাশমির করা অভিযোগের বিপরীতে এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, ১৮ বছরের রাজনৈতিক সংগ্রামে এ ধরনের কোনো সাহায্য তার দরকার পড়েনি। সত্যিকারের গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য নিজের নীতি মেনে চলেন তিনি। সেনাবাহিনী একটি অগণতান্ত্রিক শক্তি। ভবিষ্যতেও কোনো অগণতান্ত্রিক হস্তক্ষেপ তিনি চান না।
ন্যাটো সম্মেলনে যাচ্ছেন না নওয়াজ
চলমান রাজনৈতিক অচলাবস্থার কারণে ব্রিটেন সফর বাতিল করেছেন পাক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ। ন্যাটো সম্মেলনে যোগ দিতে ব্রিটেন যাওয়ার কথা ছিল তার। এর আগে একই কারণে তুরস্ক সফরও বাতিল করেন তিনি।
প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগের দাবিতে গত দু’সপ্তাহের বেশি সময় ধরে অবস্থান ধর্মঘট পালন করছে ইমরান খান নেতৃত্বাধীন পিটিআই এবং ড. তাহিরুল কাদরি নেতৃত্বাধীন পিএটি সমর্থকরা। এমতাবস্থায় পূর্বনির্ধারিত ব্রিটেন সফর বাতিল করলেন পাক প্রধানমন্ত্রী। এর আগে ন্যাটোর মহাসচিব অ্যান্ডার্স ফগ রাসমুসেন সম্মেলনে যোগ দিতে নওয়াজ শরিফকে আহ্বান জানান। আগামী ৪ ও ৫ সেপ্টেম্বর এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।
উল্লেখ্য, পাকিস্তানের রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতার কারণে সম্প্রতি ইসলামাবাদ সফর বাতিল করেন শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট মাহিন্দ্র রাজাপাকশে। এছাড়া চলতি মাসেই চীনা প্রেসিডেন্ট ঝি জিনপিংয়ের ইসলামাবাদ সফরের কথা রয়েছে।
(এইচআর/সেপ্টেম্বর ০২, ২০১৪)