Space For Rent

Space For Rent
বুধবার, ০৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৪
প্রচ্ছদ » জাতীয়
  দেখেছেন :   আপলোড তারিখ : 2014-09-03
সোবহানের বিরুদ্ধে সাক্ষী হাজির করতে পারেনি রাষ্ট্রপক্ষ
বর্তমান প্রতিবেদক : মানবতাবিরোধী অপরাধে অভিযুক্ত জামায়াতের নায়েবে আমির আব্দুস সোবহানের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষ সাক্ষী হাজির করতে না পারায় ২৭তম সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণের দিন পিছিয়ে বৃহস্পতিবার পুনর্নির্ধারণ করেছেন ট্রাইব্যুনাল।

বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের নেতৃত্বে তিন সদস্যের আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-২-এ বুধবার ২৭তম সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণের দিন নির্ধারিত ছিল। কিন্তু সাক্ষী হাজির করতে না পারায় ট্রাইব্যুনাল সাক্ষ্যগ্রহণের দিন পিছিয়ে বৃহস্পতিবার পুনর্নির্ধারণ করে।
 
গত ৭ এপ্রিল শুরু হয়ে এর আগে সোবহানের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিয়েছেন রাষ্ট্রপক্ষের আরও ২৬ জন সাক্ষী। আর জব্দ তালিকার সাক্ষী হচ্ছেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের তদন্ত সংস্থার গ্রন্থাগারিক আনিসুর রহমান। গত ১ এপ্রিল সোবহানের বিরুদ্ধে সূচনা বক্তব্য উপস্থাপন করেন রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলি সুলতান মাহমুদ সীমন ও রেজিয়া সুলতানা চমন। গত ২৭ মার্চ ট্রাইব্যুনাল-১ স্বপ্রণোদিত হয়ে এ মামলাটি ট্রাইব্যুনাল-২ এ স্থানান্তর করে।

গত বছরের ৩১ ডিসেম্বর গণহত্যা, হত্যা, অপহরণ, আটক, নির্যাতন, লুটপাট, অগ্নিসংযোগ ও ষড়যন্ত্রসহ ৮ ধরনের ৯টি মানবতাবিরোধী অপরাধে সোবহানের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে ট্রাইব্যুনাল। গত বছরের ২৩ অক্টোবর ও ২৪ নভেম্বর অভিযোগ গঠনের বিপক্ষে ও অভিযোগ থেকে অব্যাহতি চেয়ে আসামিপক্ষে শুনানি করেন সোবহানের প্রধান আইনজীবী ব্যারিস্টার আব্দুর রাজ্জাক ও আইনজীবী অ্যাডভোকেট এস এম শাহজাহান।

এর আগে ৯ অক্টোবর অভিযোগ গঠনের পক্ষে রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলি সুলতান মাহমুদ সীমন ও রেজিয়া সুলতানা চমন। গত বছরের ১৯ সেপ্টেম্বর সোবহানের বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিক অভিযোগ (ফরমাল চার্জ) আমলে নেন ট্রাইব্যুনাল।

আজাহারের যুক্তিতর্ক অব্যাহত: মানবতাবিরোধী অপরাধে অভিযুক্ত জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল এটিএম আজহারুল ইসলামের পক্ষে আসামিপক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন অব্যাহত রয়েছে। বৃহস্পতিবার পর্যন্ত যুক্তিতর্ক উপস্থাপন মুলতবি করেছেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১। মঙ্গলবার আজহারের পক্ষে চতুর্থ দিনের মতো যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করেন তার আইনজীবী আব্দুস সোবহান তরফদার। তিনি আজহারের বিরুদ্ধে প্রথম অভিযোগের ওপর অভিযোগভিত্তিক যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষ করেছেন। এর আগে গত ২৭ আগস্ট থেকে শুরু করে দুই কার্যদিবসে আইনি পয়েন্টে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করেন তার অপর আইনজীবী শিশির মোহাম্মদ মুনির। বৃহস্পতিবার পর্যন্ত যুক্তিতর্ক উপস্থাপন মুলতবি করেন বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিমের নেতৃত্বে তিন সদস্যের ট্রাইব্যুনাল।

এর আগে গত ১৮ আগস্ট থেকে ২৬ আগস্ট পর্যন্ত ৬ কার্যদিবসে আজহারের বিরুদ্ধে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করেছেন রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলি জেয়াদ আল মালুম, ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ ও তাপস কান্তি বল। আসামিপক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের মধ্য দিয়ে মামলার বিচারিক কার্যক্রম শেষ হবে। পরে আইন অনুসারে রায়ের দিন ধার্য করবেন ট্রাইব্যুনাল।

গত বছরের ২৬ ডিসেম্বর সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়ে গত ৬ জুলাই পর্যন্ত আজহারের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিয়েছেন তদন্ত কর্মকর্তা (আইও) এম ইদ্রিস আলীসহ রাষ্ট্রপক্ষের ১৯ সাক্ষী। আর জব্দ তালিকার তিন সাক্ষী হলেন তদন্তকারী কর্মকর্তার সহকারী ও ট্রাইব্যুনালের তদন্ত সংস্থার জুনিয়র সদস্য সজল মাহমুদ, আকরাম হোসেন এবং বাংলা একাডেমির গ্রন্থাগারিক এজাব উদ্দিন মিয়া। তাদের জেরা শেষ করেছেন আসামিপক্ষ। অন্যদিকে গত ৩ ও ৪ আগস্ট আজহারের পক্ষে একমাত্র সাফাই সাক্ষী হিসেবে সাক্ষ্য দেন আনোয়ারুল হক। তাকে জেরা করেছেন রাষ্ট্রপক্ষ।

এটিএম আজহারের বিরুদ্ধে গণহত্যা, হত্যা, লুণ্ঠন, ধর্ষণ, নির্যাতন, আটক, অপহরণ, গুরুতর জখম ও অগ্নিসংযোগের ৬টি অভিযোগ আনা হয়েছে। এছাড়া সুপিরিয়র রেসপনসিবিলিটিতেও ঊর্ধ্বতন নেতৃত্বের দায়ে অভিযুক্ত হয়েছেন তিনি।

(সেপ্টেম্বর ০৩, ২০১৪)