Space For Rent

Space For Rent
রবিবার, ০৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৪
প্রচ্ছদ » গ্যালারি
  দেখেছেন :   আপলোড তারিখ : 2014-09-07
আবারও চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ
ক্রীড়া প্রতিবেদক : চ্যাম্পিয়ন হওয়ার উপলক্ষই থাকে আলাদা। বাঁধভাঙা উচ্ছ্বাস। কিন্তু বাংলাদেশ জাতীয় হকি দলের ক্ষেত্রে ছিল ভিন্নতা। ওয়ার্ল্ড হকি লিগের প্রথম রাউন্ডে আবারও চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের মাঝে কোনো উচ্ছ্বাসের বালাই ছিল না। হয়তো ব্যাপারটা তাদের কাছে স্বাভাবিক ছিল। গতবার চ্যাম্পয়ন হয়েছে বলে নয়; এবারের আসরেও তারাই ছিল ফেভারিট। প্রথম ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে ৩-২ গোলে হারিয়ে সে সম্ভাবনার বীজ বেশ ভালোভাবেই বুনন করেছিল। শেষ ম্যাচে প্রতিপক্ষ হংকং ছিল আসরের সবচেয়ে দুর্বল দল। এমন দলের বিপক্ষে জয় না পাওয়ার কোনো কারণই ছিল না। সে জয় তারা পেয়েছে যোবায়ের হাসানের  হ্যাটট্রিকে ৩-১ গোলে।

প্রতিপক্ষ বিবেচনায় বাংলাদেশের আরও ব্যবধানেই জয় পাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু বাংলাদেশ  তা করতে পারেনি। এই না পারার কারণ ছিল আগের ম্যাচের শেষ মিনিটের নাটকীয়তা। তা ছাড়া ড্র কিংবা জয় পেলেই যেখানে চ্যাম্পিয়ন সেখানে বেশি গোলে ম্যাচের জয়ের দিকেও মনোনিবেশ ছিল কম। আবার পেনাল্টি কর্নার নিয়েও করা হয়েছে পরীক্ষা-নিরীক্ষা। সচরাচর যেভাবে পুশ-স্টপ-হিট করা হয়ে থাকে সেখানে পুশ-স্টপের পর হিট না করে সতীর্থ খেলোয়াড়কে ঠেলে দিয়ে গোল করার চেষ্টা করা হয়েছে। যে কারণে পেনাল্টি কর্নারগুলোও কাজে লাগেনি। এসব কারণে বাংলাদেশকে প্রথম গোল পেতে অপেক্ষা করতে হয়েছে ২৭ মিনিট পর্যন্ত। পুষ্কর ক্ষীসা মিমোর রিভার্স হিট থেকে যোবায়ের কানেক্ট করেন। এ দিন বাংলাদেশ দলের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় কৃষ্ণ জ্বরের কারণে খেলেননি।

দ্বিতীয়ার্ধে বাংলাদেশ তুলনামূলক ভালো খেলে আরও দুই গোল আদায় করে নেয়। দ্বিতীয় গোল ছিল পেনাল্টি কর্নারের সৃষ্ট ফসল।  হংকংয়ের গোলরক্ষক হাওয়ার্ড ফিরিয়ে দেয়ার পর ফিরতি বলে রিভার্স হিটে গোল করেন যোবায়ের খেলার ৪৫ মিনিটে। ৫১ মিনিটে হংকং একটি গোল পরিশোধ করে চান কা হোর মাধ্যমে। বক্সে দলপতি মামুনুর রহমান চয়ন হংকংয়ের একজন খেলোয়াড়কে অবৈধভাবে বাধা দিয়ে মাটিতে ফেলে দিলে আম্পায়ার পেনাল্টি স্ট্রোকের নির্দেশ দেন। এদিন আর গোলরক্ষক অসীম গোপ পেনাল্টি স্ট্রোক আটকাতে পারেননি ২-১। এই গোল হওয়ার দুই মিনিট পর বাংলাদেশ আবার ব্যবধান বাড়ায়। রিভার্স হিটে গোল করে হ্যাটট্রিক করেন যোবায়ের। আন্তর্জাতিক হকিতে এটি তার প্রথম হ্যাটট্রিক। ২০১১ সালে থাইল্যান্ডে এ এইচ কাপ প্রতিযোগিতার মাধ্যমে অভিষেক হওয়ার পর এখন পর্যন্ত  ২০টি ম্যাচ খেলে গোল করেছেন ১৪টি।  আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে প্রথম হ্যাটট্রিক করতে পেরে খুবই খুশি চার গোল করে আসরে সর্বোচ্চ গোলদাতার পুরস্কার জেতা এই তরুণ। আবার  হ্যাটট্রিকের চেয়েও দল জেতায় এবং চ্যাম্পিয়ন হওয়াতে তার কাছে আরও বেশি ভালো লেগেছে। এ রকম আনন্দ করার উত্সব খুঁজে পাওয়া ম্যাচ কিন্তু যোবায়েরকে সন্তুষ্ট করতে পারেনি। তারা আরও ভালো খেলার যোগ্যতা রাখেন বলে জানান তিনি। এশিয়ান গেমসে সেরকমই প্রত্যাশা করছেন তিনি এবং তার দল। একই  কথা বলেছেন দলপতি মামুনুর রহমান চয়ন।

আসরে সেরা গোলরক্ষক হয়েছেন বাংলাদেশেরই অসীম গোপ। সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার পেয়েছেন শ্রীলঙ্কার প্রিয়ালঙ্কা। হংকংয়ের খান ফাহিম হয়েছেন সেরা জুনিয়র খেলোয়াড়। খেলা শেষে পুরস্কার বিতরণ করেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন  ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী শ্রী  বীরেন সিকদার। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন হকি ফেডারেশনের সভাপতি এয়ার মার্শাল ইনামুল বারী, সাধারণ সম্পাদক খাজা রহমতউল্লাহসহ আরও অনেকে। উপস্থিত ছিলেন সহসভাপতি আব্দুর রশিদ সিকদার, যুগ্ম সম্পাদক আনভীর আদিল খান ও ইউসুফ আলী। এ ছাড়াও এফআইএইচ প্রতিনিধি ও ইউরোপীয় হকি ফেডারেশনের সদস্য মি. ডেভিড ব্যালবিরনি এ সময়ে উপস্থিত ছিলেন।

(এইচআর/সেপ্টেম্বর ০৭, ২০১৪)