Space For Rent

Space For Rent
মঙ্গলবার, ০৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৪
প্রচ্ছদ » প্রথম পাতা
  দেখেছেন :   আপলোড তারিখ : 2014-09-09
১৭ আগস্টের বোমা হামলার পলাতক আসামি গ্রেপ্তার
বর্তমান প্রতিবেদক
সারাদেশে ১৭ আগস্ট সিরিজ বোমা হামলার ঘটনায় জড়িত এক পলাতক আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে র্যাব। রবিবার রাতে রাজধানীর ভাটারা এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তার জেএমবি সদস্য সগীর হোসেন ভূঁইয়া (৪০) সিরিজ বোমা হামলায় দায়ের করা একটি মামলার অভিযোগপত্রভুক্ত আসামি। ২০০৫ সালের ১৭ আগস্ট সারাদেশে একযোগে বোমা হামলা চালিয়ে নিজেদের শক্তিমত্তার জানান দেয় জঙ্গি সংগঠন জেএমবি। এ দলটি পরে নিষিদ্ধ হয়, ফাঁসি হয় শীর্ষ নেতাদের।
গতকাল সোমবার উত্তরায় র্যাব-১ সদর দপ্তরে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে র্যাব-১-এর অপারেশন অফিসার কামরুল হাসান বলেন, ‘দেশব্যাপী গ্রেনেড হামলার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় সগীরও আসামি। রবিবার রাতে তাকে ভাটারা এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।’
র্যাবের গণমাধ্যম শাখার পরিচালক মুফতি মাহমুদ খান বলেন, সগীর ২০০৫ সালের ১৭ আগস্ট বিমানবন্দর টার্মিনাল এলাকায় বোমা হামলায় ‘প্রত্যক্ষভাবে’ জড়িত ছিলেন। ওইদিনই বিমানবন্দর থানায় বিস্ফোরকদ্রব্য আইনে তার বিরুদ্ধে মামলা হয়। পরে অভিযোগপত্রেও তাকে ৩ নম্বর আসামি করা হয়। একই দিনে গুলশান-১-এর স্টার ওয়াচ ও ইসলামী মিষ্টান্ন ভাণ্ডারের সামনে এবং গুলশান-২-এ বিলকিস টাওয়ারের সামনে বোমা বিস্ফোরণের মামলাতেও সগীর আসামি বলে জানান তিনি। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সগীর জানিয়েছেন, এতদিন তিনি গাজীপুর, তুরাগ ও ভাটারা এলাকায় আত্মগোপনে ছিলেন। পরিচয় গোপন রেখে তিনি রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় কাঁচামালের ব্যবসা করে আসছিলেন। কয়েকটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে পিয়নের চাকরিও তিনি করেছেন।
র্যাবের গণমাধ্যম শাখার সহকারী পরিচালক মাকসুদুল আলম বলেন, ‘জঙ্গি দমনে র্যাবের প্রতিটি দপ্তরে একটি বিশেষ দল কাজ করে। তারা সগীরের অবস্থান জানতে পেরে তাকে গ্রেপ্তারে সহায়তা করেছে।’
র্যাব-১-এর অধিনায়ক তুহিন মুহাম্মদ মাসুদ জানান, জেএমবি আবারও সক্রিয় হচ্ছে কি না, আল কায়েদার সঙ্গে সম্পৃক্ততা আছে কি না, কোনো নাশকতার পরিকল্পনা চলছে কি না, এসব বিষয়ে তারা সগীরকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে। কিন্তু তার কাছ থেকে তেমন কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।
২০০৫ সালের ১৭ আগস্ট দেশের ৬৩টি জেলায় জেএমবির সিরিজ বোমা হামলায় ২ জন নিহত ও ৫০ জন আহত হন। ওই ঘটনায় ১৬১টি মামলা হয়, যার ১০২টির রায় ইতিমধ্যে ঘোষণা করা হয়েছে। এসব রায়ে ১৫ জনকে মৃত্যুদণ্ড ও ১১৮ জনকে যাবজ্জীবন সাজা দিয়েছে আদালত। এ ছাড়া বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে ৯৯ জনকে, জামিনে রয়েছেন ৩৫ জন, পলাতক রয়েছেন ৫৩ জন।