Space For Rent

Space For Rent
মঙ্গলবার, ০৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৪
প্রচ্ছদ » শেষ পাতা
  দেখেছেন :   আপলোড তারিখ : 2014-09-09
বাড়ি ভাড়ার কর নিতে তত্পর এনবিআর
মসিউর মাসুম
২৫ হাজার টাকার বেশি ভাড়া রয়েছে এরকম ফ্ল্যাট মালিকদের ব্যাংক হিসাব খোলার বিষয়টি মনিটরিং করতে কর্মকর্তাদের প্রতি কঠোর নির্দেশ দিয়েছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। সম্প্রতি বোর্ডের শীর্ষ কর্মকর্তাদের সঙ্গে মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের এক বৈঠকে এ নির্দেশ দেয়া হয়। নির্দেশনায় বলা হয়, সরকারের কোষাগারে রাজস্ব জমা দেয়ার মতো যথেষ্ট সামর্থ্যবান হওয়া সত্ত্বেও অনেক বাড়ি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালিক তা করছে না। এ ক্ষেত্রে কর্মকর্তাদেরও গাফিলতি রয়েছে। ফলে সম্ভাবনাময় এ খাত থেকে বিপুল পরািণ রাজস্ব হারাচ্ছে সরকার।
বৈঠকে, করদাতাদের আয়কর নথির অডিট আপত্তি রয়েছে এরকম সাত হাজার আপত্তি দ্রুত নিষ্পত্তির জন্য মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেয়া হয়।
এনবিআরের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তরা বলেন, গেল অর্থবছরে (২০১৩-১৪) করের আওতায় পড়ে এ রকম প্রায় এক লাখ ৬৭ হাজার বাড়ি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খুঁজে পায় এনবিআর। এসব করদাতাদের আয়কর নথি চালু করার কঠোর নির্দেশনা সত্ত্বেও নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে এক তৃতীয়াংশ নথি চালু করতে সক্ষম হন মাঠ কর্মকর্তারা। এতে এনবিআরের শীর্ষ মহল অসন্তুষ্ট। এর পরিপ্রেক্ষিতে সম্প্রতি হয়ে যাওয়া বৈঠকে দ্রুত অবশিষ্ট বাড়ি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের আয়কর নথি চালুর নির্দেশ আসে।
উল্লেখ্য, চলতি অর্থবছরের বাজেটে (২০১৪-১৫) ২৫ হাজার টাকার বেশি ভাড়া রয়েছে এরকম ফ্ল্যাট মালিকদের ব্যাংক হিসাব খুলা ও এই ব্যাংক হিসাবে মাধ্যমে ভাড়া নেয়ার বিধান করা হয়েছে। বিধান পরিপালন করা না হলে গৃহ সম্পত্তি বাবদ অর্জিত আয়ের ওপর প্রদেয় আয়করের ৫০ শতাংশ অথবা ন্যূনতম ৫ হাজার টাকা (যেটি বেশি) হারে বাধ্যতামূলকভাবে জরিমানা আরোপিত হবে। এ সংক্রান্ত একটি সংশোধিত বিধিমালা সম্প্রতি এনবিআর থেকে জারি করা হয়েছে। বাড়ির মালিকদের ব্যাংক হিসাব খোলার বিষয়ে কোন ধরনের গাফিলতি সহ্য করা হবে না বলে বৈঠকে রাজস্ব কর্মকর্তাদের সর্তক করে দেয়া হয়। এদিকে এনবিআরে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, প্রায় সাত বছরের অডিট আপত্তি অনিষ্পন্ন অবস্থায় পড়ে আছে। এতে সংস্থাটির হাজার হাজার কোটি আটকে আছে। কেবল বৃহত্ করদাতা ইউনিটেই (এলটিইউ) অডিট আপত্তি ও মামলার কারণে আটকে আছে প্রায় ৬ হাজার কোটি টাকার রাজস্ব। তাই বিভিন্ন কর অঞ্চলের অধীন কোম্পানির আয়কর সংক্রান্ত সব ধরনের অডিট আপত্তি দ্রুত সময়ের মধ্যে নিষ্পত্তির নির্দেশ দেয়া হয়েছে এনবিআরের শীর্ষ পর্যায় থেকে। একই সঙ্গে অডিট আপত্তি নিষ্পত্তি শেষে পাওনা রাজস্বও দ্রুত আদায়ের তাগিদও দেয়া হয়েছে।