Space For Rent

Space For Rent
মঙ্গলবার, ০৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৪
প্রচ্ছদ » গ্যালারি
  দেখেছেন :   আপলোড তারিখ : 2014-09-09
সেরেনার সামনে শুধু স্টেফিগ্রাফ
ক্রীড়া ডেস্ক
রেকর্ডটা হয়েও যেতে পারে। গ্যালারিতে বসে তা দেখার সুযোগটা মিস করেননি মার্টিনা নাভ্রাতিলোভা ও ক্রিস এভার্ট। নিজ চোখে দেখেছেন নিজেদের রেকর্ডে কীভাবে ভাগ বসালেন পাওয়ার টেনিসের অন্যতম প্রবক্তা সেরেনা উইলিয়ামস। ফ্লাশিং মিডোতে সেরেনা দাপটে শেষ পর্যন্ত ম্লান ড্যানিশ কন্যা ক্যারোলিন ওজনিয়াকির সব জারিজুরি। বছরের শেষ গ্রান্ডস্লাম ইউএস ওপেনের ফাইনালের স্কোরটা দাঁড়াল ৬-৩, ৬-৩। সরাসরি সেটে জিতে নতুন রেকর্ডই গড়ে ফেলেছেন মার্কিন কৃষ্ণকলি সেরেনা উইলিয়ামস। এ নিয়ে তার গ্র্যান্ডস্লামের সংখ্যা দাঁড়াল ১৮টিতে। যাতে তিনি স্পর্শ করলেন সাবেক টেনিস তারকা মার্টিনা নাভ্রাতিলোভা ও ক্রিস এভার্টের রেকর্ড। ১৮টি গ্রান্ডস্লাম নিয়ে এই তিনজনই এখন যুগ্মভাবে দ্বিতীয়। ২২টি গ্র্যান্ডস্লাম নিয়ে শীর্ষে রয়েছেন স্টেফিগ্রাফ। সেরেনার সামনে শুধু এখন তিনিই।
নিজেদের রেকর্ড স্পর্শ করেছেন সেরেনা, তাতে বিন্দুমাত্র আক্ষেপ দেখা যায়নি নাভ্রাতিলোভা ও এভার্টের। বরং কোর্টে ট্রফি নিয়ে সেরেনা যখন আনন্দে লাফাচ্ছেন শিশুদের মতো, তখন গ্যালারিতে হাততালি দিয়ে অভিবাদন জানিয়েছেন তারা। শুধু তাই নয়, একপর্যায়ে নেমে আসেন কোর্টে। সেরেনাকে মাঝে রেখে হাসিমুখে ছবিতে পোজও দেন তারা।
সবচেয়ে বেশি বয়সী প্রমীলা খেলোয়াড় হিসেবে ইউএস ওপেন জেতার রেকর্ড গড়েছেন সেরেনা। আর কদিন পরেই পালন করবেন ৩৩তম জন্মদিন। অথচ এই বয়সেই পুরুষ এককে ১৮তম গ্র্যান্ডস্লামের সন্ধানে কত না হাঁটছেন রজার ফেদেরার, কিন্তু কিছুতেই দেখা পাচ্ছেন না তিনি। ইউএস ওপেনের প্রাইজমানিতেও রেকর্ড গড়েছেন সেরেনা। টেনিস ইতিহাসে এই প্রথমবারের মতো মহিলা একক গ্র্যান্ডস্লাম জয়ীকে দেয়া হয়েছে রেকর্ড চার মিলিয়ন ইউএস ডলার, যা নতুন এক মাইলফলক সৃষ্টি করেছে। ইউএস ওপেনে সেরেনার এটি ষষ্ঠ গ্র্যান্ডস্লাম। শিরোপা জেতার পাশাপাশি বিশ্ব টেনিস র্যাঙ্কিংয়ে শীর্ষস্থানটাও ফিরে পেয়েছেন সেরেনা। একসঙ্গে এত প্রাপ্তি, খুশির ভেলায় যেন ভেসে বেড়াতে চাচ্ছেন মার্কিন টেনিস তারকা।
১৮তম গ্র্যান্ডস্লামের দেখা সেরেনা পেতে পারতেন গত উইম্বলডনেই। কিন্তু তৃতীয় রাউন্ড থেকেই আকস্মিক বিদায় নেন তিনি। যা ছিল ২০০৫ সালের পর উইম্বলডনে সেরেনার দ্রুততম বিদায়। পরে অসুস্থতার কারণে খেলতে পারেননি কয়েকটি টুর্নামেন্ট। কিন্তু এরপর ঠিকই নিজেকে গুছিয়ে নিয়েছেন তিনি। তার প্রমাণ ইউএস ওপেন। ফাইনালে প্রতিপক্ষ একেবারে সহজ ছিল না। পথের বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারতেন ওজনিয়াকি। অন্যান্য রাউন্ডে ওজনিয়াকির ভয়াল রূপ অবশ্য দেখা মেলেনি ফাইনালে। মাত্র ৭৫ মিনিটেই সেরেনার কাছে অসহায় আত্মসমর্পণ করেন তিনি। হেরে যান সরাসরি সেটে (৬-৩, ৬-৩)। গত চার বছরে সেরেনা জিতেছেন সাতটি গ্র্যান্ডস্লাম। এখান থেকেই পরিষ্কার, শেষ বয়সেই যেন আরও বেশি দুর্দমনীয় তিনি। এটাও পরিষ্কার, স্টেফিগ্রাফের রেকর্ডটাতেই আপাতত তার চোখ।
শিরোপা জেতার পর সেরেনাকে ‘এইটিন’ লেখা একটি সোনালি ব্রেসলেট উপহার দেন নাভ্রাতিলোভা ও এভার্ট। যা পেয়ে বেশ উদ্বেলিত ছিলেন তিনি। বলেছেন, ‘আমি কী এমন কেউকেটা! এই গ্রেট, এই কিংবদন্তির সঙ্গে আমারও নাম উচ্চারিত হবে, কখনই তো ভাবিনি।’ তবে ১৮তম গ্র্যান্ডস্লাম জয়ের পেছনে কতটা কষ্ট করতে হয়েছে, তাও জানিয়েছেন সেরেনা। বলেছেন, ‘গত কয়েক মাস ধরেই আমি কঠোর প্রাকটিস করেছি। যার প্রতিদান পেয়েছি এখানে। আমি খুবই খুশি, সেই সঙ্গে নার্ভাসও। কারণ আমার গ্র্যান্ডস্লামের সংখ্যা এখন ১৮। যেখানে উচ্চারিত হবে আমার সঙ্গে আরও দুই গ্রেট খেলোয়াড়ের নামও। এতে আমি বেশ রোমাঞ্চিত।’
অন্যদিকে প্রথমবারের মতো গ্র্যান্ডস্লাম জয়ে আবিষ্ট থেকেও শেষ পর্যন্ত হতাশ হতে হয়েছে ক্যারোলিন ওজনিয়াকিকে। সাবেক এক নম্বর এই টেনিস খেলোয়াড় এখনও ছুঁতে পারেননি কোনো গ্র্যান্ডস্টলাম ট্রফি। তবে সেরা সাফল্য এই ইউএস ওপেনেই। ক্যারিয়ারে দুবার গ্র্যান্ডস্লামের ফাইনালে উঠেছেন তিনি এই ইউএস ওপেনেই। তাছাড়া অস্ট্রেলিয়ান ওপেন, ফ্রেঞ্চ ওপেন ও উইম্বলডনের ফাইনাল এখনও স্বপ্নই রয়ে গেছে তার।