Space For Rent

Space For Rent
মঙ্গলবার, ০৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৪
প্রচ্ছদ » অন্যদেশ
  দেখেছেন :   আপলোড তারিখ : 2014-09-09
ইরাকে নতুন সরকার গঠন
বর্তমান ডেস্ক : ইরাকের আইন প্রণেতারা নতুন মন্ত্রিসভার অনুমোদন দিয়েছেন। তবে নিরাপত্তাবিষয়ক গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি পদ খালি রাখা হয়েছে। গোলযোগপূর্ণ পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে  সোমবার পার্লামেন্টের গুরুত্বপূর্ণ এ অধিবেশন শুরু হয়। স্পিকার সেলিম আল জুবুরিকে পরিস্থিতি শান্ত করতে হিমশিম খেতে হয়। বেশ কয়েক এমপি অনুপস্থিত ছিলেন। পার্লামেন্টে মোট ৩২৮ এমপির মধ্যে ২৮৯ জন উপস্থিত ছিলেন। এমপিরা তিন উপপ্রধানমন্ত্রী ও ২১ মন্ত্রীর অনুমোদন দেন। তবে স্বরাষ্ট্র, প্রতিরক্ষাসহ গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি পদে কাউকে নিয়োগ দেয়া হয়নি। এদিকে প্রধানমন্ত্রী হায়দার আল আবাদির নেতৃত্বে গঠিত ইরাকের নতুন সরকারকে স্বাগত জানিয়েছেন জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি মুন ও মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। ইরাকে বিদ্রোহী আইএস দমনে দেশটির সঙ্গে একত্রে কাজ করার প্রতিশ্রুতিও ব্যক্ত করেন বারাক ওবামা। খবর: বিবিসি, রয়টার্স ও আল জাজিরার।
আবাদি আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে খালি পদগুলোতে নিয়োগের নির্দেশ দিয়েছেন। তার আগ পর্যন্ত ভারপ্রাপ্তদের দিয়ে মন্ত্রণালয় চালানো হবে। বিগত সরকারও কয়েকটি পদ খালি রেখে সরকার পরিচালনা শুরু করেছিল। ইরাকের নতুন মন্ত্রিসভায় সংখ্যাগরিষ্ঠ শিয়া আরব, সুন্নি আরব ও কুর্দিরা স্থান পেয়েছে। শিয়া প্রধানমন্ত্রী আবাদি তিন উপপ্রধানমন্ত্রী হিসেবে কুর্দিদের বিদায়ী পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসায়ের জেবারির, ধর্মনিরপেক্ষ সুন্নি সালেহ আল মুতলাক এবং শিয়া ইসলামী ও সাবেক এমপি বাহা আরাজির নাম ঘোষণা করেন। শিয়া সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট আদেল আব্দুল মাহদিকে তেলমন্ত্রী ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইবরাহিম জাফারি হবেন পররাষ্ট্র মন্ত্রী। তিনিও শিয়া ধর্মাবলম্বী।
বান কি মুন নতুন সরকারকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, ‘ইরাকে শান্তি ও রাজনৈতিক স্থিতিশীলতার জন্য এটি একটি ইতিবাচক পদক্ষেপ। এছাড়া ইরাকের সকল পক্ষকে নিয়ে একটি সর্বদলীয় সরকার গঠন করায় প্রধানমন্ত্রী আবাদিকে ধন্যবাদ জানান তিনি। জাতিসংঘ মহাসচিব আরও বলেন, ‘ইরাক ও অত্র অঞ্চলের সঙ্কটময় মুহূর্তে  দেশটিতে এমন একটি সরকার দেশটির রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা ও শান্তির ক্ষেত্রে ইতিবাচব পদক্ষেপ।’ মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা আবাদিকে টেলিফোন করে নতুন সরকারকে স্বাগত জানান। পরে এক বিবৃতিতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জানান, ইরাকি প্রধানমন্ত্রী দেশটির সব পক্ষের সঙ্গে মিলেমিশে কাজ করার অঙ্গীকার করেছেন। সেই সঙ্গে আবাদি আইএস যোদ্ধাদের বিরুদ্ধে কাজ করতে আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক শক্তির পাশাপাশি ইরাকি প্রচেষ্টাকে জোরদার করারও প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন বলে জানান ওবামা। বাগদাদে নতুন সরকার গঠিত হওয়ায় অভিনন্দন জানিয়ে এটিকে ‘একটি গুরুত্বপূর্ণ মাইলফলক’ হিসেবে বর্ণনা করেছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি।
এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘নৃতাত্ত্বিক ও সাম্প্রদায়িক বিভাজনকে পিছনে ফেলে, ইরাকি পার্লামেন্ট একটি নতুন ও বহুপক্ষীয় সরকার গঠন করেছে। এটি ইরাকের বহুধা বিভক্ত সম্প্রদায়গুলোকে একত্রিত করে একটি শক্তিশালী ইরাক গঠনের যোগ্যতা রাখে।’ ‘একতাবদ্ধ ইরাক সব সমপ্রদায়ের আকাঙ্ক্ষা ও প্রাপ্যকে বাস্তবায়নের ভবিষ্যত্ গঠন করার সুযোগ তৈরি করতে পারে, বলেন তিনি।’ কেরি জানান, আইএস জঙ্গিদের সঙ্গে লড়াই, তাদের পর্যদুস্ত ও পরিশেষে পরাজিত করার লক্ষ্যে মিত্রদের সম্ভাব্য বৃহত্তর জোট গঠনে আলোচনা করার জন্য মঙ্গলবার তিনি মধ্যপ্রাচ্যের উদ্দেশে রওনা দেন।
প্রসঙ্গত, গত আগস্টে নূরি আল-মালিকি পদত্যাগ করার পর মধ্যপন্থী শিয়া নেতা হায়দার আল আবাদিকে সরকার গঠনের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। এর পর থেকেই যুক্তরাষ্ট্র বাগদাদে একটি ঐকমত্যের সরকার গঠনের চেষ্টা চালিয়ে আসছিল, যাতে আইএসের বিরুদ্ধে লড়াই করা যায়।
(এইচআর/সেপ্টেম্বর ০৯, ২০১৪)