Space For Rent

Space For Rent
মঙ্গলবার, ০৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৪
প্রচ্ছদ » জাতীয়
  দেখেছেন :   আপলোড তারিখ : 2014-09-09
তিস্তা চুক্তির বিষয়ে সরকার আন্তরিক
বর্তমান প্রতিবেদক : পররাষ্ট্রমন্ত্রী এএইচ মাহমুদ আলীর পক্ষে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম বলেছেন, ‘তিস্তার পানি বণ্টন চুক্তি সম্পাদনের ব্যাপারে বর্তমান সরকার অত্যন্ত আন্তরিক ও তত্পর। ভারতে নতুন সরকার গঠন হওয়ার পরও এ চুক্তি স্বাক্ষরের বিষয়ে সরকারের পক্ষ থেকে কূটনৈতিক যোগাযোগ এবং চাপ অব্যাহত রয়েছে। ভারতের নতুন সরকারের সঙ্গে এ যাবত্ অনুষ্ঠিত দ্বিপক্ষীয় বৈঠকগুলোয় তিস্তা চুক্তি দ্রুত সম্পাদনের জন্য বাংলাদেশের পক্ষ থেকে জোর তাগাদা দেয়া হয়েছে।’ মঙ্গলবার সংসদে জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য একেএম মাইদুল ইসলামের এক প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী এ কথা বলেন।
পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘ভারতকে যৌথ নদী কমিশনের পরবর্তী বৈঠকের জন্য অনুরোধ করা হয়েছে। এ বিষয়ে ভারত জানিয়েছে, বিষয়টি তাদের সক্রিয় বিবেচনাধীন আছে এবং তাদের অভ্যন্তরীণ রাজনৈতিক ঐকমত্য গঠনের প্রচেষ্টা চলছে।’ আসছে বাংলাদেশ-ভারত যৌথ পরামর্শক কমিশনের সভায় বিষয়টি বাংলাদেশের পক্ষ থেকে জোরালভাবে পুনঃউত্থাপন করা হবে বলেও জানান তিনি।
তিস্তা চুক্তি প্রসঙ্গে তিনি আরও বলেন, ‘২০১০ সালের জানুয়ারিতে প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফরের পর এ চুক্তি নিয়ে সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা দেয়া হয়। যার পরিপ্রেক্ষিতে একই সালের মার্চে অনুষ্ঠিত ৩৭তম যৌথ নদী কমিশনের বৈঠক ও ২০১১ সালের জানুয়ারিতে পানি সম্পদ সচিব পর্যায়ে অনুষ্ঠিত সভায় এ বিষয়ে খসড়া চুক্তি চূড়ান্ত করা হয়। তখন আশা প্রকাশ করা হয়, ভারতের তত্কালীন প্রধানমন্ত্রীর বাংলাদেশ সফরকালে চুক্তিটি স্বাক্ষর হবে; কিন্তু ভারতের অভ্যন্তরীণ রাজনৈতিক জটিলতার কারণে চুক্তিটি এখনও সম্পাদন করা হয়নি। তবে চুক্তিটি সম্পাদনের বিষয়ে উভয় দেশের সরকারের ঐকান্তিক প্রচেষ্টা থাকা সত্ত্বেও চুক্তিটি স্বাক্ষর না হওয়ায় ভারতের তত্কালীন প্রধানমন্ত্রী দুঃখ প্রকাশ করেছেন।
(সেপ্টেম্বর ০৯, ২০১৪)