বেনাপোল চেকপোস্টে চোরাচালানী পণ্য আট, প্রাণনাশের হুমকী কাস্টমস ডিসিকে
জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে থানায় মামলা
Published : Sunday, 9 January, 2022 at 6:58 PM, Count : 2257

বেনাপোল প্রতিনিধ: ভারতে যাতায়াতকারী ল্যাগেজ পার্টির চোরাচালানী মালামাল আটক করতে গিয়ে রোসানলে পড়েছেন বেনাপোল কাস্টমস হাউসের ডেপুটি কমিশনার মো: আব্দুল কাইয়ুম। চোরাচালানীরা তাকে প্রায়শ:ই প্রাণনাশের হুমকী দিচ্ছেন। এ ঘটনায় ৩০ ডিসেম্বর জীবনের নিরাপওা চেয়ে বেনাপোল পোর্র্ট থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন ডিসি আব্দুল কাইয়ুম। ফলে ল্যাগেজ পার্টি নামধারী চোরাচালানী সদস্যরা প্রতিদিন লক্ষ লক্ষ টাকার চোরাচালানী পন্য পাচার করছে দীর্ঘদিন এই পথে। কাস্টমস হাউসের যুগ্ন কমিশনার আব্দুশ রশিদ মিয়া বেনাপোল যোগদানের পর পরই ভারতে থকে আসা কয়েক কোটি টাকার চোরচালানী মালামাল আটক করে। আদায় করা হয় ৩০ লাখ টাকার রাজস্ব। যারা প্রকৃত পাসপোর্ট যাত্রী তারা ব্যাগজ স্ক্যানিং করে সরাসরি গ্রীন চ্যানেল দিয়ে চলে যাচ্ছে। শুধুমাত্র অবৈধভাবে কাস্টমস’র চোখ ফাঁকি দিয়ে নিয়ে আসা চোরাচালানী ব্যবসায়ীদে মালামাল আটক করে রাজস্ব আদায় করায় ক্ষুুব্দ হয়ে উঠেছে ল্যাগেজ পার্টির সদস্যরা।
গত ২৯ ডিসেম্বর সকালে বিজনেস ভিসায় বাংলাদেশে আসা ভারতীয় ল্যাগেজ পার্টি যাত্রী রিয়াজ মণ্ডল প্রতিদিন লক্ষ লক্ষটাকার চোরাচালানী মালামাল পাচার করে এনে বেনাপোল চেকপোস্টে দোকানে বিক্রি করে ফিরে যাচ্ছে দেশে। কাস্টমস কর্তৃপক্ষ ঐদিন তার ৩০ লাখ টাকার মালামাল আটক করে রাজস্ব পরিশোধ করে ছেড়ে দেয়।  সম্প্রতিককালে ভারতীয় একটি চোরাচালানী চক্র পাসপোর্ট যোগে প্রতিদিন বিজিনেস ভিসা নিয়ে বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে দেশে প্রবেশ করছে। তাদের সাথে আনা লক্ষ লক্ষ টাকার মালামাল চেকপোস্টেই বিক্রি করে ফিরে যাচ্ছে বলে অভিযোগ করেন কাস্টমস ডেপুটি কমিশনার আব্দুল কাইয়ুম।
বেনাপোল কাস্টমস হাউসের উপ কমিশনার মোঃ আব্দুল কাইয়ুম গতকাল এ প্রতিনিধিকে জানান, দীর্ঘ দিন ইমগ্রেশনে কর্মরত থাকায় একটি অসাধু চক্র তৈরি হয়েছে। আমার বিভিন্ন সময় গন পরিবহনে করে কর্ম স্থানে যেতে হয়, সে সময় আমি লক্ষ্য করেছি কিছু লোক আমাকে অনুসরন করে যা আমার কাছে নিরাপদ মনে হয়নি। যার ফলে আমি বেনাপোল পোর্ট থানায় একটি জিডি করেছি।
 বেনাপোল পোর্ট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বলেন, বেনাপোল কস্টমস হাউসের পক্ষ থেকে একটি ডিজি গ্রহণ করা হয়ে। পরবর্তীতে আইননুগাত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। বেনাপোল কাস্টমস কমিশনার আজিজুর রহমান গতরাতে এ প্রতিবেদককে জানান, যাত্রীরা ব্যাগেজরুলস অনুসারে পন্য পরিবহন করতে পারবেন কেউ যদি ব্যাগেজ রুলসের অতিরিক্ত পন্য আনে তাহলে সেটা ডিএম করা হয়। পরবর্তীতে রাজস্ব আদায় করে পন্য ছাড় দেওয়া হয়। এখানে কাউকে হয়রানি করা হয় না।



« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
সম্পাদক ও প্রকাশক: আলহাজ্ব মিজানুর রহমান, উপদেষ্টা সম্পাদক: এ. কে. এম জায়েদ হোসেন খান, নির্বাহী সম্পাদক: নাজমূল হক সরকার।
সম্পাদক ও প্রকাশক কর্তৃক শরীয়তপুর প্রিন্টিং প্রেস, ২৩৪ ফকিরাপুল, ঢাকা থেকে মুদ্রিত।
সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : মুন গ্রুপ, লেভেল-১৭, সানমুন স্টার টাওয়ার ৩৭ দিলকুশা বাণিজ্যিক এলাকা, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত।, ফোন: ০২-৯৫৮৪১২৪-৫, ফ্যাক্স: ৯৫৮৪১২৩
ওয়েবসাইট : www.dailybartoman.com ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Developed & Maintainance by i2soft